প্রাণিজাত পণ্যের বহুমুখীকরণে গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার
প্রাণিজাত পণ্যের বহুমুখীকরণে গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার

প্রাণিজাত পণ্যের বহুমুখীকরণে গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার

প্রাণিজাত পণ্যের বহুমুখীকরণে গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী শম রেজাউল করিম বলেন, সরকার প্রাণিসম্পদ

খাতে উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধির পাশাপাশি প্রাণিসম্পদ পণ্যের বহুমুখীকরণের ওপর গুরুত্ব দিচ্ছে।মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) রাজধানীর হোটেল

ইন্টারকন্টিনেন্টালে প্রাণিসম্পদ অধিদফতর কর্তৃক বাস্তবায়িত প্রাণিসম্পদ ও দুগ্ধ উন্নয়ন প্রকল্পে কৃষি ব্যবসা পরিকল্পনা, প্রযুক্তি ও বিপণন

পরামর্শ এবং বাস্তবায়ন সহায়তা বিষয়ক সূচনা কর্মশালায় তিনি এসব কথা বলেন।প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

 

প্রাণিজাত পণ্যের বহুমুখীকরণে গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার

প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এএফসি এগ্রিকালচার অ্যান্ড ফাইন্যান্স কনসালট্যান্টস, একটি জার্মান ভিত্তিক

পরামর্শক প্রতিষ্ঠান এবং তাদের বাংলাদেশ প্রতিনিধি পরিষেবা এবং সমাধান ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডকে পশুসম্পদ ও দুগ্ধ উন্নয়ন প্রকল্পের

পরামর্শক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর ও পূর্বোক্ত পরামর্শক প্রতিষ্ঠান যৌথভাবে এ কর্মশালার আয়োজন করে।

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. মনজুর মোহাম্মদ শাহজাদ,

মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন। ইনসেপশন রিপোর্ট পেশ করেছে ইন্টারন্যাশনাল এগ্রিকালচার ইকোনমিস্ট কনসালটিং এজেন্সি। মানব চক্র।

মন্ত্রী আরও বলেন, দেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো কৃষকদের উৎপাদিত পণ্য যাতে হোঁচট না পড়ে সেজন্য ভ্রাম্যমাণ বিক্রয় ব্যবস্থার মাধ্যমে

মাছ, মাংস, দুধ ও ডিম বিক্রির ব্যবস্থা করেছি। বিদেশ থেকে যাতে মাংস আমদানি করা না হয় সে জন্য আমরা কৌশলগত নীতি নির্ধারণ করেছি

কারণ আমাদের দেশে যথেষ্ট গবাদি পশু রয়েছে। দেশে পর্যাপ্ত মাংস উৎপাদন হচ্ছে। মন্ত্রী বলেন, সরকার বেসরকারি খাতকে উৎসাহিত, উৎসাহিত ও সহযোগিতা করছে।

তার বার্তায় তিনি বলেন, “2021 বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কের জন্য একটি

ঐতিহাসিক বছর। এই উপলক্ষে, দুটি দেশের সম্পর্কের বার্ষিকী গ্রাউন্ড ব্রেকিং অনুষ্ঠান এবং উচ্চ পর্যায়ের ব্যস্ততার মধ্য দিয়ে উদযাপিত হয়েছে।

এই উপলক্ষে শেখ হাসিনা হাসিনা প্রধানমন্ত্রী এবং ভারতের জনগণকে তার আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী, স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী এবং বাংলাদেশ-ভারত কূটনৈতিক

সম্পর্কের 50 তম বার্ষিকী উপলক্ষে উদযাপনে যোগ দিতে 2021 সালের মার্চ মাসে নরেন্দ্র মোদির ঢাকা সফরের কথা কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করেন।

তিনি যোগ করেছেন, “আপনার বন্ধুত্বপূর্ণ উপস্থিতি উদযাপনে অতিরিক্ত অনুপ্রেরণা যোগ করেছে এবং আমাদের দুই দেশের মধ্যে বিদ্যমান চমৎকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে আরও শক্তিশালী করেছে।”

প্রাণিজাত পণ্যের বহুমুখীকরণে গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার

শেখ হাসিনা ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে ভারত সরকার ও জনগণের সমর্থনের কথা কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করে বলেন

, এটি দুই দেশের মধ্যে এক অনন্য সম্পর্কের ভিত্তি স্থাপন করেছে। তিনি আরও বলেন, ৬ ডিসেম্বর যৌথভাবে ‘বন্ধু দিবস’ উদযাপন ছিল

দুই দেশের মধ্যে বিদ্যমান বিশেষ সম্পর্কের বহিঃপ্রকাশ। ১৯৭১ সালের এই দিনে ভারত বাংলাদেশকে স্বাধীন সার্বভৌম দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দেয়।

কোভিড-১৯ বৈশ্বিক মহামারী চলাকালীন বিদ্যমান ক্ষেত্রগুলি ছাড়াও সহযোগিতার অনেক নতুন ক্ষেত্র চিহ্নিত করা হয়েছে উল্লেখ করে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, “সাম্প্রতিক বছরগুলিতে আমাদের অনন্য বন্ধুত্ব, সহযোগিতা ও বিশ্বাসের বন্ধন আরও সুদৃঢ় ও শক্তিশালী হয়েছে। ” 75 বছর পূর্তি উপলক্ষে ‘আজাদিকা অমৃত মহোৎসব’ উদযাপন বিশেষভাবে আনন্দদায়ক হবে। “

About admin

Check Also

খালেদা জিয়া বাইরে থেকে লাভ কী তাঁকে কারাগারে

খালেদা জিয়া বাইরে থেকে লাভ কী তাঁকে কারাগারে

খালেদা জিয়া বাইরে থেকে লাভ কী তাঁকে কারাগারে, বর্তমান সরকার ভুল পথে চলছে বলে মনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.