শেখ হাসিনার অবদানের কথা সারাদেশে ছড়িয়ে দিতে হবে
শেখ হাসিনার অবদানের কথা সারাদেশে ছড়িয়ে দিতে হবে

শেখ হাসিনার অবদানের কথা সারাদেশে ছড়িয়ে দিতে হবে

শেখ হাসিনার অবদানের কথা সারাদেশে ছড়িয়ে দিতে হবে, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার প্রতিটি অবদান ছড়িয়ে দিতে হবে সারাদেশে।

বাংলাদেশকে সত্যিকার অর্থে একটি কল্যাণ রাষ্ট্রে রূপান্তর করতে বঙ্গবন্ধু কন্যার সকল অবদান জনসমক্ষে তুলে ধরতে হবে। মঙ্গলবার তথ্য

ও গবেষণা উপকমিটির ভার্চুয়াল বৈঠকে আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ এ তথ্য জানান।তিনি বলেন, তথ্য ও

গবেষণা উপ-কমিটির পক্ষ থেকে আমরা সাংগঠনিক বিষয়ে দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় যাওয়া আওয়ামী লীগের সকল নেতাদের জন্য শেখ হাসিনার

 

শেখ হাসিনার অবদানের কথা সারাদেশে ছড়িয়ে দিতে হবে

বিভিন্ন উন্নয়ন ও অবদানের তথ্য সম্বলিত একটি খসড়া তৈরি করেছি। সফর।” বিভিন্ন টেলিভিশন টক শো ও সেমিনারে অংশগ্রহণকারী

নেতা ও বুদ্ধিজীবীরা। আমি করছি. শুধু আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদেরই এই প্রচারণা চালাতে হবে না, এদেশের প্রতিটি নাগরিক শেখ হাসিনার উন্নয়নের

সুফলভোগী। শেখ হাসিনার উন্নয়ন প্রচার করা তাদের নৈতিক দায়িত্ব।সমালোচকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, গ্রামে গিয়ে দেখুন আওয়ামী লীগ

কেন ভোট পাচ্ছে। আওয়ামী লীগের প্রতি সাধারণ মানুষের সমর্থন দিন দিন বাড়ছে। স্থানীয় নির্বাচন, মেয়র নির্বাচনে মানুষ নৌকায় ভোট দিয়েছে।

রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা এদেশের শ্রমিক ও কৃষক শ্রমিকদের জন্য

কী করেছেন তা আমরা সবাই জানি। এগুলো প্রচার করা উচিত। যাদের জমি বা ঘর নেই, শেখ হাসিনার সরকার তাদের বাড়ি, ফ্রিজ, টেলিভিশন,

রাইস কুকার, প্রেসার কুকার, ফ্যান দিয়েছে।সেলিম বলেন, শেখ হাসিনাই একমাত্র নেতা যিনি ইউনিয়ন পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখেন।

তিনি নিজেই তাদের খোঁজখবর নেন। শেখ হাসিনার কারণে গরীব মানুষ ঠিকানা পেয়েছে। এটি মানুষের জীবন কিভাবে পরিবর্তন এবং উন্নত করা

যায় তার একটি উদাহরণ। আমাদের নেতা ধীরে ধীরে মানুষকে ঘরে নিয়ে যাচ্ছেন। একজন মানুষ ঠিকানা ছাড়া থাকবে না। এটাই ছিল জাতির পিতার ইচ্ছা।

প্রকল্পের ধীরগতিতে ক্ষুব্ধ প্রধানমন্ত্রী প্রকল্পের ধীরগতিতে ক্ষুব্ধ প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশ রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে আজ দেশে-বিদেশে ষড়যন্ত্র চলছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ষড়যন্ত্রকারীরা আজ বাংলাদেশের অর্জনকে নস্যাৎ করতে চায়।

দেশের বিরুদ্ধে এই ষড়যন্ত্রের কথা দেশের মানুষকে জানাতে হবে।আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া সভায় বলেন, তথ্য ও

গবেষণা উপ-কমিটি ইতিমধ্যে ডিজিটাল প্রযুক্তির মাধ্যমে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জননেত্রী শেখ হাসিনার বিভিন্ন উন্নয়নমূলক

শেখ হাসিনার অবদানের কথা সারাদেশে ছড়িয়ে দিতে হবে

কর্মকাণ্ড প্রচারে সক্রিয় ভূমিকা পালন করছে। এসব কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে হবে। নতুন ডিজিটাল মাধ্যমে প্রচারণা চালাতে হবে। বিএনপি-

জামায়াতের দেশবিরোধী কর্মকাণ্ড জনগণের সামনে তুলে ধরতে হবে।সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপকমিটির সদস্য ড. শামসুর

রহমান, অধ্যাপক ড. জাহানারা আরজু, ব্যারিস্টার সৌমিত্র সরদার, নাজমুল তুহিন, আরিফুল ইসলাম টিপু, নুরুল ইসলাম মজুমদার,

মনিরুজ্জামান শেখ, আবুল ফজল রাজু, রুবাইয়াত রাকিব, সিতুল মুনা, আরিফুল ইসলাম টিপু, দিলরুবা। শবনম জাহান, অ্যাডভোকেট শওকত আলী পাটোয়ারী, ফাহিম শাহরিয়ার প্রমুখ।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.